প্রতি বছর, ছাত্র-ছাত্রীদের একটি বড় অংশ আন্তর্জাতিক পরিবেশে একটি ভাল শিক্ষার অভিজ্ঞতা এবং শিক্ষা কর্মসূচি শেষ হওয়ার পর ভাল কাজের সম্ভাবনর জন্য বিদেশে পাড়ি জমায়।

নতুন জায়গা, নতুন সংস্কৃতি এবং একটি নতুন সামাজিক জীবন অবশ্যই তাদের ছাত্র 'ব্যক্তিত্বে দীর্ঘস্থায়ী প্রভাব ফেলে এবং তাদের চিন্তাধারায় নতুন পথ উন্মোচন করে।

বিদেশে অধ্যয়ন সম্ভবত আপনার শিক্ষাজীবনের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ মুহূর্ত যা আপনাকে এবং আপনার জীবনকে চীরদিনের জন্য পরিবর্তন করে দিতে পারে। আপনি বিদেশে অধ্যয়নের পরে কোনকিছুই আর আগের মতো থাকবে না। আপনার দৃষ্টিভঙ্গি হবে বিশ্বব্যাপী, আপনার মনোভাব হবে আন্তর্জাতিক এবং আপনি চিরকালের জন্য কিছু স্মৃতি লালন করবেন। আপনার রিজিউম(জীবন বৃত্তান্ত) নিশ্চয় আরো চিত্তাকর্ষক হবে এবং আপনার ভাষা দক্ষতা উন্নত হবে।

তাছাড়া, আপনার একাডেমিক বছরের শেষে আপনার নিশ্চয় একটি প্লাস নেটওয়ার্ক থাকবে যা বিশ্বের বিভিন্ন দেশের প্রতিনিধিত্ব করবে। তাদের সাথে আপনার জীবনব্যাপী বন্ধুত্ব আপনার জীবনের জন্য একটি সম্পদ হতে পারে!

সর্বোপরি, একটি ভাল ডিগ্রী একটি শ্রেষ্ঠত্বের ছাপ যা আপনাকে জীবনভর চিহ্নিত করবে।এটা আপনার পেশা উন্নত করবে এবং আপনি দেশে বা বিশ্বের কোথাও নেতৃত্বের জন্য আপনি প্রস্তুত থাকবেন। এটা আপনার দিগন্ত প্রসারিত করবে ও বিভিন্ন দৃষ্টিভঙ্গিতে, সর্বশেষ প্রযুক্তি, এবং রাষ্ট্রীয় অত্যাধুনিক গবেষণা ও প্রশিক্ষণে আপনাকে প্রকাশ করবে । আপনি দেশে ফিরে নেতৃস্থানীয় আন্তর্জাতিক গবেষকদের সঙ্গে কাজের ক্ষেএে বিদেশে সহকর্মীদের সাথে যোগাযোগ করতে পারেন।আপনার শর্তগুলি যাই হোক না কেন, বাংলাদেশের বাইরে বহুসংখ্যক কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয় পাবেন যারা আপনার চাহিদা এবং আগ্রহের সাথে মিলে যাবে ।

কিছু প্রোগ্রাম আপনাকে সুযোগ দেয় তাদের নিজ নিজ ক্ষেত্রে শ্রেষ্ঠ কিছু মনের সাথে সরাসরি যোগাযোগ করার যা নিশ্চয় আপনার জ্ঞানের নতুন দিগন্তকে উন্মোচন করবে।

এবং অবশ্যই, সঠিক পরিকল্পনা এবং দিক নির্দেশনার দ্বারা আপনি খুব কম খরচে এবং সময়মত বিদেশে অধ্যয়ন করতে পারেন, এমনকি ছাত্রবৃত্তির মাধ্যমে বিনামূল্যেও!

Back to Top