Aronotica

 

 

প্রকৌশলীরা একটি দলের অংশ হিসাবে কাজ করে যা বিমান রক্ষণাবেক্ষণ ও উচ্চ পর্যায়ের প্রযুক্তিগত নির্ভূলতা  নিশ্চিত করে। প্রকৌশল পেশার প্রধান কাজ হল নকশা, উন্নয়ন, রক্ষণাবেক্ষণ ও কার্যক্ষমতা পরীক্ষণ।

জব প্রফাইল


Untitled-3

• বেসামরিক বিমানের এ্যারোনটিক্যাল ইঞ্জিনিয়াররা সাধারণত বিমানচালনাসংক্রান্ত যান্ত্রিক বা ইলেকট্রনিক প্রকৌশলে বিশেষজ্ঞ।

• মেকানিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারা পুঙ্খানুপুঙ্খরূপে ইঞ্জিন এবং এয়ারফ্রেমের মেরামতর সেবা প্রদান করে।

• অ্যারোনটিক্যাল ইলেকট্রনিক ইঞ্জিনিয়াররা যন্ত্রপাতি, বৈদ্যুতিক এবং ইলেকট্রনিক যন্ত্রপাতি, ন্যাভিগেশন, রাডার এবং বেতার যোগাযোগ রক্ষণাবেক্ষণে বিশেষজ্ঞ।

• ফ্লাইট ইঞ্জিনিয়ার প্রাক উড্ডয়ন পরিদর্শন করা এবং ফ্লাইটের সময় বিমানের দক্ষ কর্মক্ষমতার জন্য দায়ী। তারা কোনো সিস্টেমে বিপর্যয় মোকাবেলা, মেরামত পরিচালনা, কোনো ত্রুটির রক্ষণাবেক্ষণের রিপোর্ট নির্ণয় এবং পরিচালনা করে এবং পরে পরীক্ষা করে তা ঠিক মতো হয়েছে কি না। তারা জ্বালানি ভরার জন্য দায়ী হতে পারে।

• ইঞ্জিনিয়াররা মাটিতে রুটিন রক্ষণাবেক্ষণ চালায় বিমানবন্দরে বিমান অবতরন করার পর।

• তারা বিমান ক্রু থেকে উড়ানোর সময় কোন অসুবিধা অভিজ্ঞতার পাওয়া রিপোর্ট সাড়া দিয়ে,তা মেরামত এবং সংশোধন করে।

• এছাড়াও তারা হ্যাঙ্গারে ও কারখানায় বিমান রক্ষণাবেক্ষণ ও মেরামতের কাজ করে যখন একটি বিমান তার নিয়মিত পরিদর্শন এবং চেক জন্য আসে।

• চেকের জন্য তারা সম্পূর্ণ কার্যপত্র তৈরী করে, যদি তারা লাইসেন্সপ্রাপ্ত হয় বা একজন যোগ্যতাসম্পন্ন সুপারভাইজার দ্বারা তারা তা প্রত্যয়িত করে।

 

skill-14

 

 

এ্যারোনটিক্যাল ইঞ্জিনিয়ার উপর একটি ভিডিও ক্লিপ

 

 

কর্মসংস্থানের সুযোগ


কর্মসংস্থানের সুযোগ রয়েছে বাংলাদেশ বিমান,বেসরকারি হেলিকপ্টার কোম্পানি এবং ব্যক্তিগত যাত্রী পরিবহন ও কার্গো বিমান সংস্থা, এবং সরকার মালিকানাধীন বিমান সেবা সংস্থায়। বিমান সসংস্থাগুলি ছাড়াও,এ্যারোনটিক্যাল ইঞ্জিনিয়াররা যেমন প্রতিরক্ষা গবেষণা ও উন্নয়ন গবেষণাগার, জাতীয় বৈমানিক ল্যাব, বৈমানিক উন্নয়ন সংস্থাপন, বেসামরিক বিমান পরিবহন বিভাগ এবং অন্যান্য জায়গায় নিয়োগ পেতে পারেন।
দেশের মধ্যে গবেষণা ও উন্নয়ন সুবিধা বৃদ্ধি পাওয়ায় বৈমানিক পেশাদারদের চ্যালেঞ্জিং সম্ভাবনা বৃদ্ধির সুযোগ পাচ্ছে বিভিন্ন ক্ষেত্রে যেমন ক্ষেপণাস্ত্র উন্নয়ন, বেসামরিক ও সামরিক বিমান উৎপাদন ইত্যাদি।

 

আয়ের সুযোগ


প্রতি বছরে ১.২২ লক্ষ ১৪.৬ লক্ষ
(বেতন তথ্য উৎস PayScale.com )

সরকারী সংস্থার ইঞ্জিনিয়ারদের যেমন:বাংলাদেশ বিমান অফিসিয়াল স্কেলে বেতন প্রদান করা হয় , যখন বেসরকারি খাতের কোন কোম্পানীতে তারা নিয়োগ প্রপ্ত হন তখন তাদের ব্যবস্থাপনা দ্বারা নির্ধারিত স্কেলে অর্থ প্রদান করা হয় । বিমান পরিবহন সংস্থার পেশাদাররা নিজের এবং পরিবারের জন্য বিনামূল্যে ভ্রমণের ভাল সুবিধা পান।

 

নিয়োগকারী প্রতিষ্ঠান


biman

 

 

 

• সিভিল এভিয়েশন অথরিটি

• স্কয়ার এয়ার লিমিটেড

• সাউথ এশিয়ান এয়ারলাইন্স লিমিটেড

• সিকদার গ্রুপ

• ইয়াং ইয়াং (আরিয়ান) গ্রুপ

• পিএইচপি গ্রুপ

• বাংলা ইন্টারন্যাশনাল

 

কিভাবে এ পেশায় আসবেন


 

arono

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

যান্ত্রিক এবং ইলেকট্রনিক্স শাখা এ্যারোনটিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারিং অধ্যয়নের বিশেষ ক্ষেত্র হিসেবে অনুসরণ হতে পারে।

প্রয়োজনীয় যোগ্যতা:

নিয়মিত ছাত্র হতে হবে
A লেভেল- পদার্থবিজ্ঞান এবং গণিত
এইচএসসি(বিজ্ঞান) সঙ্গে জিপিএ ৩.৫
অন্য কোন যোগ্যতা স্বীকৃত সমতুল্য যোগ্যতা

মিলিটারী ইনস্টিটিউট অফ সায়েন্স অ্যান্ড টেকনোলজি

স্নাতক ভর্তি পরীক্ষায় অংশ নিতে নূন্যতম যোগ্যতা নিম্নরূপঃ
ক. বিজ্ঞান বিভাগে এইচএসসি / আলিম / সমমানের পরীক্ষায় ইন্টারমিডিয়েট এবং সেকেন্ডারি এডুকেশন বোর্ড/মাদ্রাসা শিক্ষা বোর্ড / কারিগরি শিক্ষা বোর্ড থেকে আবেদনকারীর ৫টি বিষয়ের মধ্যে সর্বনিম্ন যে কোন ৩টি বিষয় ‘এ’ গ্রেড প্রাপ্ত হবে বাংলা, গণিত, পদার্থ, রসায়ন ও ইংরেজি এবং বাকি ২টি বিষয় ‘এ + থাকতে হবে।

খ. GCE ‘এ’ লেভেল / সমমানের ব্যাকগ্রাউন্ড আবেদনকারীদের গণিত, পদার্থবিজ্ঞান এবং রসায়ন বিষয়ের যে কোন ২টিতে সর্বনিম্ন ‘বি’ গ্রেড এবং অবশিষ্টটিতে এ থাকতে হবে।

গ. চলতি বছর অথবা এক বছর পূর্বে যারা এইচএসসি বা সমমানের পরীক্ষায় পাস করেছেন ভর্তির জন্য আবেদন করতে পারেন।

ঘ. সেক্স: পুরুষ এবং মহিলা।

Untitled-1

 

১. কলেজ অফ এভিয়েশন টেকনোলজি

Share Button
পড়া হয়েছে 2,058 বার

Back to Top