অস্ট্রেলিয়ার জনপ্রিয় কোর্সসমূহ

 

অস্ট্রেলিয়ার উচ্চ শিক্ষার জন্য নিবন্ধকৃত ৩৬%ই আন্তর্জাতিক শিক্ষার্থী। কলেজ বা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রতি ৩ জন ছাত্রের মধ্যে একজন থাকে বিদেশী ছাত্র।
বাংলাদেশী ছাত্রদের কাছে অস্ট্রেলিয়া পড়াশোনার জন্য বেশ জনপ্রিয়। বিভিন্ন কোর্সে প্রায় ৪২,০০০ ভারতীয় শিক্ষার্থী নিবন্ধন করেছে।
বিদেশী শিক্ষার্থী আকর্ষণের ক্ষেত্রে বর্তমানে অস্ট্রেলিয়া ইউএস এবং ইউকে-র সাথে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছে। এখানে বিশ্বমানের শিক্ষা ছাড়াও যোগ্য শিক্ষার্থীদের লাভজনক ক্যারিয়ার গড়ার সুযোগ দিচ্ছে।
 
যারা পড়াশোনার জন্য বিদেশে যেতে ইচ্ছুক তাদের বিভিন্ন কোর্স এবং ভবিষ্যৎ ক্যারিয়ারের সম্ভবনা সম্পর্কে জানা উচিত,বিশেষ করে অস্ট্রেলিয়ারটা জানা প্রয়োজন। বর্তমানে অনেক বিষয়ের মধ্য থেকে নিজের পছন্দের বিষয় নির্বাচন করার সুযোগ আছে।
 
একটি অস্ট্রেলিয়ান শিক্ষাগত যোগ্যতা সাধারণত স্থায়ী বসবাস এবং ওয়ার্কিং ভিসা পাওয়ার সম্ভবনা বাড়িয়ে দেয়। অস্ট্রেলিয়ায় কোর্স শেষ করার পর, আন্তর্জাতিক শিক্ষার্থীরা চাইলে ওয়ার্ক ভিসার আবেদন করতে পারেন এবং স্থায়ীভাবে বসবাস বা ভিসার জন্য আবেদন করতে হলে সংশ্লিষ্ট ফিল্ডে নুন্যতম ১ বছর কাজ করতে হবে।
জনপ্রিয় কোর্সগুলোর ক্ষেত্রে বাংলাদেশী,আন্তর্জাতিক এবং বিদেশী ছাত্রদের জন্য অস্ট্রেলিয়া যথেষ্ট সুযোগ সুবিধা অফার করে থাকে। আন্তর্জাতিক খ্যাতিসম্পন্ন বিশ্ববিদ্যালয় হিসেবে তারা প্রতিটি বিভাগে অনেক বিষয় ওফার করে থাকে।

ব্যবসাঃ

কোর্স শেষ করার পর বাংলাদেশী শিক্ষার্থীদের প্রথম পছন্দ ব্যবসা।

ব্যবসা পরিচালনা ও প্রশাসন (MBA)

 
অনেক বাংলাদেশী শিক্ষার্থীই এমবিএ পড়ার জন্য অস্ট্রেলিয়ায় যায়। সঠিক পরিকল্পনার সাথে এমবিএ যাত্রা শুরু করা ভালো। সিদ্ধান্ত প্রক্রিয়ায় যে সব গুরুত্বপূর্ণ ভেরিয়াবল প্রভাব ফেলতে পারে তা আগে থেকেই বুঝতে হবে। পাশাপাশি কেন এমবিএ-র অবস্থান গুরুত্বপূর্ণ তা জানতে হবে। একটি ভালো এমবিএ প্রোগ্রাম মানে শুধু ভালো পড়াশোনাকে বুঝায় না, বরং আপনি কি সম্পর্কে জানছেন এবং ভবিষ্যত সুবিধার জন্য নেটওয়ার্ক।
অস্ট্রেলিয়ায় প্রায় সব প্রধান বিশ্ববিদ্যালয়ই এমবিএ প্রোগ্রাম অফার করে।পার্ট টাইম বা ফুল টাইম শিক্ষার্থীর উপর নির্ভর করে কোর্সের মেয়াদ ১৮ মাস থেকে ৫ বছর পর্যন্ত হতে পারে। এমবিএ প্রোগ্রাম মূলত পার্ট টাইম, ফুল টাইম, দেশীয় ও আন্তর্জাতিক শিক্ষার্থীদের সমন্বয়ে সাজানো হয়।
অধিকাংশ শিক্ষার্থী ব্যবস্থানায় তাদের দক্ষতা ও মনোযোগ বাড়াতে মেজর বিষয়গুলোর দিকে চোখ রাখে। নিচে ব্যবসায় কোর্সের কিছু মেজর বিষয় উল্লেখ করা হলঃ
• ব্যাংকিং ও অর্থব্যবস্থা

• ম্যানেজমেন্ট ইনফরমেশন সিস্টেম

• হিসাব-বিজ্ঞান

• মানব সম্পদ

• মার্কেটিং।

তথ্য প্রযুক্তি (IT)

 
বর্তমানে বাংলাদেশী তরুণদের অন্যতম পছন্দের বিষয়ের নাম তথ্য প্রযুক্তি। কোর্সটি প্রযুক্তিগত জ্ঞান এবং তত্ত্বের সাথে বাস্তব অভিজ্ঞতার সমন্বয়ে গঠিত।কোর্সের ব্যবহারিক প্রয়োগ চাকরিদাতাদের পছন্দ অনুযায়ী গ্র্যাজুয়েট তৈরিতে সাহায্য করে। টাকা ও সময় অনুকুলে থাকলে যে কেউ তথ্য প্রযুক্তি বিষয়ে পড়তে পারেন।

প্রকৌশল

 
তথ্য প্রযুক্তির পরেই বাংলাদেশী শিক্ষার্থীদের পছন্দ প্রকৌশল বিষয়টি। বিষয়টি শিক্ষার্থীদের পছন্দ কেননা এখানে গবেষণা এবং চাকরির সুযোগ অনেক বেশি।
প্রকৌশলের কিছু উল্লেখ যোগ্য বিষয় নিম্নে দেয়া হলো:
• কম্পিউটার বিজ্ঞান ও প্রকৌশল

• তড়িৎ প্রকৌশল

• মেকানিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারিং

• জৈব চিকিৎসা প্রকৌশল

• সিভিল ইঞ্জিনিয়ারিং

• রাসায়নিক প্রকৌশল

Share Button
পড়া হয়েছে 964 বার

Back to Top