মালয়েশিয়ায় ভর্তি প্রক্রিয়া

নিম্নলিখিত পদক্ষেপগুলি ভর্তি প্রক্রিয়ার জন্য সম্পন্ন করা আবশ্যক

ভর্তি প্রক্রিয়া ধাপ ১

প্রাথমিক অনুমোদনের জন্য সংশ্লিষ্ট কলেজ / বিশ্ববিদ্যালয়ে আপনার প্রাতিষ্ঠানিক যোগ্যতা ‘ফ্যাক্স অথবা ইমেইল’ করে পাঠাতে হবে।

ভর্তি প্রক্রিয়া ধাপ ২

কলেজ / বিশ্ববিদ্যালয় আপনার ফ্যাক্স অথবা ইমেইল পাওয়ার ৩ দিনের মধ্যে উত্তর দিবে। আপনার আবেদন গৃহীত হলে আনুষ্ঠানিক আবেদন জমা দিতে হবে যা নিচে দেয়া হলঃ
• স্টুডেন্ট আবেদন ফরম জমা দিতে হবে। (ছাত্র এবং পিতা-মাতা / অভিভাবক দ্বারা স্বাক্ষরিত)

• ৭ কপি পাসপোর্ট সাইজ ছবি (নীল ব্যাকগ্রাউন্ড) ।

• মাধ্যমিক বা বিশ্ববিদ্যালয়ের সার্টিফিকেট, একাডেমিক ট্রান্সক্রিপ্টের সত্যায়িত কপি যা অবশ্যই ইংরেজিতে হতে হবে।

• কোন বিষয়ে ছাড়/ এডভান্স পড়তে চাইলে পূর্ববর্তী স্টাডির সিলেবাস জমা দিতে হবে। এছাড়া পাসপোর্টের (ফাঁকা পেজ সহ সমস্ত পাতা) ১টি ফটোকপিও জমা দিতে হবে।

• পাসপোর্টের অন্তত এক বছরের মেয়াদ থাকতে হবে।

• দেশ থেকে করা একটি সাধারন মেডিকেল রিপোর্ট জমা দিতে হবে। (রক্ত পরীক্ষার প্রয়োজন নেই, সাধারণ স্বাস্থ্য পরীক্ষা)

• এই পর্যায়ে কোন পেমেন্ট করতে হবে না। অন্যান্য ফি কখন দিতে হবে তা পরবর্তী পর্যায়ে জানানো হবে।

ভর্তি প্রক্রিয়া ধাপ ৩

ডকুমেন্ট পাওয়ার উপর নির্ভর করে কলেজ / বিশ্ববিদ্যালয় ‘অ্যাকসেপ্টেন্স বা গ্রহণ প্যাকেজ’ এজেন্টের কাছে কুরিয়ার করে পাঠাবে। প্যাকেজে যা থাকবেঃ
• অফার লেটার।
• অফার রেসপন্স এবং পেমেন্ট পরামর্শ ফর্ম।
• কোর্স ফি রিফান্ড পলিসি।
• স্টুডেন্টস বা ছাত্র কপি।
• অফিস কপি।
• বাসস্থান বা একোমোডেশন বুকিং ফর্ম।
• এরাইভাল বা পোঁছানোর সার্ভিস ফর্ম।

ভর্তি প্রক্রিয়া ধাপ ৪

উপরের কাগজ গৃহীত হলে, ‘স্টুডেন্ট ভিসা’ আবেদনের জন্য মালয়েশিয়ান ইমিগ্রেশন ডিপার্টমেন্টে প্রয়োজনীয় সব কাগজপত্র জমা দিতে হবে। সাধারণত এই প্রক্রিয়া সমাপ্ত হতে ৪থেকে ৬ সপ্তাহ সময় লাগে।

ভর্তি প্রক্রিয়া ধাপ ৫

মালয়েশিয়ান ইমিগ্রেশন ডিপার্টমেন্ট ভিসার অনুমোদন দেয়ার পর সংশ্লিষ্ট কলেজ বা বিশ্ববিদ্যালয়ে ফ্যাক্স / ইমেইল অথবা কুরিয়ার করে ‘স্টুডেন্ট ভিসা অনুমোদন চিঠি’ পাঠিয়ে দিবে।

ভর্তি প্রক্রিয়া ধাপ ৬

এই পর্যায়ে, মালয়েশিয়ার দূতাবাসে সিঙ্গেল এন্ট্রি বা একক প্রবেশ ভিসা পাওয়ার জন্য ভিসা লেটার নিয়ে যেতে হবে এবং ফ্লাইটের ব্যবস্থা করতে হবে। ফ্লাইট বিবরণ নিশ্চিত হওয়ার পর ছাত্রকে তার ‘এরাইভাল বা পোঁছানোর সার্ভিস ফর্ম’ জমা দিবে।

ভর্তি প্রক্রিয়া ধাপ ৭

কলেজ / বিশ্ববিদ্যালয়ে পোঁছানোর পর সমস্ত বকেয়া টাকা পরিশোধ করতে হবে। তারপর মেডিকেল টেস্টের জন্য ক্লিনিকে পাঠানো হবে।অতঃপর, ছাত্রের পাসপোর্ট এবং মেডিকেল রিপোর্ট মালয়েশিয়ার ইমিগ্রেশন ডিপার্টমেন্টে জমা দেওয়া হবে ‘মাল্টিপল এন্ট্রি স্টুডেন্ট পাস’ পাসপোর্টে অনুমোদন দেয়ার জন্য। এই প্রক্রিয়া শেষ হতে ৩-৪ সপ্তাহ সময় লাগে।
সাধারণত ‘মাল্টিপল এন্ট্রি স্টুডেন্ট পাস’ ১ বছর মেয়াদি হয়।স্বল্প খরচে (নির্ভর করে শিক্ষার্থীর দেশের উপর) প্রতি বছর এ ভিসা পুনরায় বৈধ করা যায়।আর এই কাজে বিশ্ববিদ্যালয় সাহায্য করে থাকে।

Share Button
পড়া হয়েছে 354 বার

Back to Top