কিভাবে বিদেশে পড়াশোনার একটি প্রোগ্রাম নির্বাচন করবেন

Apply

 

যদি আপনি মনে করেন বিদেশে পড়াশোনার একটি প্রোগ্রাম নির্বাচন করা সহজ,তাহলে আবার ভাবুন। বিশ্ব জুড়ে অসংখ্য বিশ্ববিদ্যালয়ের সীমাহীন অপশন ছাত্রদের তাদের জন্য বিদেশে পড়াশোনার একটি উপযুক্ত প্রোগ্রাম নির্বাচনের কাজটিকে কঠিন করে তোলে। অধিকাংশ বাংলাদেশী ছাত্র এখনও মনে করেন বিদেশী বিশ্ববিদ্যালয় থেকে কেবলমাএ একটি ডিগ্রী নেয়া হলে,এটি তার রিজিউমিতে ভাল সম্পদ এবং মান বৃদ্ধি করবে। এটা কিছু কিছু ক্ষেত্রে সত্য হতে পারে, কিন্তু যদি এই ডিগ্রী আপনাকে কিছুই না শেখায় অথবা যদি বাংলাদেশী প্রেক্ষাপটে এর কোনো মূল্য না থাকে, তাহলে এট শুধুই একটি অপ্রয়োজনীয় কাগজের টুকরা হয়ে যায়। যদি আপনি বিদেশে অধ্যয়ন এবং আপনার উচ্চ শিক্ষা নিতে চান, তাহলে আপনাকে অনেক গবেষণা করতে হবে। NNE নিচের এই রোডম্যাপ তৈরী করেছে যা আপনাকে বিদেশে পড়াশোনার জন্য শুধুমাত্র একটি প্রোগ্রামই না বরং বিদেশে পড়াশোনার উপযুক্ত প্রোগ্রাম নির্বাচনে সাহায্য করবে।

একটি দেশ নির্বাচন

প্রথম ধাপে এমনকি প্রোগ্রামের সিদ্ধান্ত নেওয়ার আগে বিদেশে আপনার পঠিত প্রোগ্রামের দেশ নির্বাচন করা জরুরি। পড়াশোনার জন্য উপযুক্ত দেশ নির্বাচন খুবই গুরুত্বপূর্ণ যেহেতু ভবিষ্যতে তারা আপনার ব্যক্তিগত ও পেশাগত জীবন গঠন করবে। বাংলাদেশীরা সাধারণত UK ও US-তে পড়াশুনা করে এবং যে ধরনের শিক্ষা তারা এ দেশগুলোতে পায় তা অধিকাংশ ক্ষেত্রে বাংলাদেশেরা সাথে মেলে না। তবে, নতুন অধ্যয়ন গন্তব্যস্থল যেমন অস্ট্রেলিয়া, নিউজিল্যান্ড, সিঙ্গাপুর, মালয়েশিয়া,কানাডা, জাপান, জার্মানি, ফ্রান্স এবং ইতালি এখন অনেক বাংলাদেশী ছাত্রদের আকর্ষন করছে। দেশের ব্যাপারে সিদ্ধান্ত নেবার সময় নিম্নলিখিত পয়েন্টগুলো মনে রাখবেন:

• বড় শহর বা ছোট শহর

• বাংলাদেশ থেকে দূরত্ব

• আপনার দেশের সঙ্গে রাজনৈতিক সম্পর্ক

• দেশটির অর্থনৈতিক অবস্থা

• আন্তর্জাতিক ছাত্রদের নিরাপত্তা

• দেশটির প্রভাবশালী ধর্ম

ভাষা

মনে হতে পারে বিদেশে পঠিত প্রোগ্রাম নির্বাচনের ক্ষেত্রে ভাষাগত বিষয় তেমন কোনো গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে না, তাহলে আপনার ধারণা সম্পূর্ণ ভুল। ইংরেজি ভাষায় কথা বলে না এমন কোন দেশে যদি বিশেষ একটি প্রোগ্রাম নির্বাচনের পরিকল্পনা করে থাকেন তাহলে আগেই যাচাই করে নিতে হবে প্রোগ্রামটি ইংরেজি না অন্য ভাষায় অফার করা হয়েছে। উদাহরণস্বরূপ আপনি যদি সঙ্গীত নিয়ে পড়তে চান, জার্মানি সুন্দর দেশগুলোর অন্যতম যে শিল্প এবং সঙ্গীতে কিছু চমৎকার প্রোগ্রাম অফার করে। তবে,বাংলাদেশী ছাত্রদের মধ্যে জার্মান খুব জনপ্রিয় কোনো ভাষা নয়। সুতরাং ভাষাটি বাংলাদেশে শিখতে হবে অথবা বিশ্ববিদ্যালয় নিজে শিক্ষা দেবে নথিভুক্ত হতে হবে এবং প্রোগ্রামটি ইংরেজিতে শেখানো হয় কি না তা নিশ্চিত হতে হবে।

প্রোগ্রামের খরচ

মূল্য একটি গুরুত্বপূর্ণ ফ্যাক্টর যা আপনাকে একটি ক্যারিয়ারের জন্য মনে রাখতে হবে। স্মার্ট পদ্ধতিতে একটি হোমওয়ার্ক করুন।প্রথমে আপনার নির্বাচিত দেশগুলোর এবং অন্যান্য দেশগুলোর বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের কাংক্ষিত প্রোগ্রামের একটি তালিকা তৈরী করুন। যদি আপনি অন্তত দুটি বিশ্ববিদ্যালয়ে কম বেশি অনুরূপ প্রোগ্রাম পাঠ্যক্রম খুঁজে পান, তাহলে সাশ্রয়ী প্রোগ্রামটি বেছে নিন।

পাঠ্যক্রম

প্রোগ্রাম বেছে নেবার আগে আপনার উচিত যত্নসহকারে পাঠ্যক্রমের বিবরণ জেনে নেয়া ।

• এটি প্রযুক্তিগত / ব্যবহারিক প্রশিক্ষণ অফার করছে কিনা

• আপনার দেশে এবং অন্যত্র প্রোগ্রাম এবং বিশ্ববিদ্যালয় স্বীকৃত কিনা

• প্রোগ্রামের মেয়াদ

• প্রোগ্রামের অভ্যন্তরীন কার্যক্রম

প্রোগ্রামের প্রকারভেদ

যখন বিদেশে পড়ার জন্য একটি প্রোগ্রাম নির্বাচন করবেন, কোন ধরনের প্রোগ্রাম আপনি করতে চান তার সিদ্ধান্ত নেয়াও প্রয়োজন। এটি একটি মাস্টার্স ডিগ্রী, ডিপ্লোমা প্রোগ্রাম, সার্টিফিকেট কোর্স হতে পারে বা এমনকি আপনি গবেষণাও করতে পারেন। বিভিন্ন শহরের বিভিন্ন প্রোগ্রামে বিভিন্ন পদমর্যদা ব্যবহার করা হয়। উদাহরণস্বরূপ বাংলাদেশের ডিপ্লোমা জার্মানির ডিপ্লমা থেকে ভিন্ন। জার্মানিতে ডিপ্লমা মাস্টার্স ডিগ্রীর সমতুল্য।

কোথায় বাস করবেন

যখন আপনি একটি নির্দিষ্ট দেশে অধ্যয়ন করার সিদ্ধান্ত নেন তখন কোথায় বাস করবেন এটি একটি গুরুত্বপূর্ণ ফ্যাক্টর যা আপনার বিবেচনা করা উচিত। ক্যাম্পাসের মধ্যে বা আশেপাশে থাকার সুবিধাগুলো চেক করুন। একটি ছোট স্থানের একটি বিশ্ববিদ্যালয়ে বাসস্থানের অনেক বেশি অপশন নাও থাকতে পারে।

একটি প্রোগ্রামের অনুষদ

বেশীরভাগ বিশ্ববিদ্যালয় তাদের প্রোগ্রামের অনুষদের একটি ব্যাকগ্রাউন্ড দিয়ে থাকে। ব্রোশিওর দেখুন, তাহলে হয়তো আপনি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকদের সম্পর্কে একটি ভাল ধারণা খুঁজে পেতে পারেন।

 

study

 

Share Button
পড়া হয়েছে 594 বার

Back to Top